হাচি কাশিতে মহিলাদের প্রস্রাব ঝরা বা Stress Urinary Incontinence ( SUI )

হাচি কাশিতে মহিলাদের প্রস্রাব ঝরা বা Stress Urinary Incontinence ( SUI )

কোন রকম বেগ ছাড়াই মেয়েদের অনিয়ন্ত্রিত প্রস্রাব বেরিয়ে যাওয়া চিকিৎসার পরিভাষায় ইউরিনারি স্ট্রেস ইনকন্টিনেন্স বা Stress Urinary Incontinence ( SUI ) নামে পরিচিত । সাধারনত এ রোগে হাঁচি-কাশি, ওঠা-বসা  বা ভারী কোনো জিনিস উঠানোর সময় মূত্রথলির সংকোচন ছাড়াই অনিচ্ছাকৃতভাবে মহিলাদের অল্প পরিমাণ প্রস্রাব বেরিয়ে আসে। যদিও ইউরিনারি স্ট্রেস ইনকন্টিনেন্স প্রানঘাতী রোগ নয় তথাপি SUI এর কারনে জীবন যাত্রার মান ধীরে ধীরে অবনত হতে থাকে।

সুস্থ মানুষ প্রস্রাবের বেগ চাপলেও যথাযথ সুযোগ এবং স্থান না পেলে দীর্ঘসময় প্রস্রাব ধরে রাখতে পারে। যারা ইউরিনারি স্ট্রেস ইনকন্টিনেন্সে ভুগছেন তাদের হাঁচি, কাশি বা হাসির সাথে অজান্তেই প্রস্রাব বেরিয়ে যায়। এর ওপর নিজের কোনো নিয়ন্ত্রণ থাকে না। প্রাথমিক অবস্থায় প্রচণ্ড হাঁচি বা প্রবল কাশির সঙ্গে হঠাৎ সামান্য প্রস্রাব বেরিয়ে আসতে পারে। বয়স এবং অসুখের তীব্রতা বৃদ্ধির সঙ্গে সামান্য হাঁচি, কাশি বা হাসিতেই প্রস্রাব বেরিয়ে যায়।যোনিপথের আশপাশের এলাকা বেশীর ভাগ সময় প্রস্রাব দিয়ে ভেজা থাকার জন্য ছত্রাক সংক্রমণ ও ঘা হওয়ার সম্ভবনা অনেক বেড়ে যায়। এমনকি ইউরিনারি স্ট্রেস ইনকন্টিনেন্স এর ফলে প্রস্রাবে জীবাণু সংক্রমণ হয়ে থাকে । এ রোগে আক্রান্ত অধিকাংশ মহিলা নিজেদেরকে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড থেকে গুটিয়ে রাখেন ।

বিশ্বব্যাপী পরিসংখ্যানে জানা যায় প্রতি ৪জনে ১ জন মহিলা এ রোগে আক্রান্ত । আমাদের দেশের মহিলাদের অধিকাংশ লজ্জাজনিত কারনে  চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে নিরবে ইউরিনারি স্ট্রেস ইনকন্টিনেন্স – এ ভুগছেন । বর্তমানে উন্নত বিশ্বের ব্যাপক সমাদৃত স্বল্প সময়ের কাঁটা-ছেড়াহীন লেজার চিকিৎসায় ইউরিনারি স্ট্রেস ইনকন্টিনেন্স এর নিরাপদে দিনে দিনেই বাড়ী ফেরা সম্ভব হচ্ছে। ।